Tips

জমির খতিয়ান, অনলাইনে পর্চা ও অনলাইনে মৌজা ম্যাপ দেখার নিয়ম

জমির খতিয়ান বের করার নিয়ম। সবাইকে স্বাগত জানিয়ে শুরু করছি আজকের পোস্ট। আজকে আমরা একোটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে হাজির হয়েছি। ডিজিটাল বাংলাদেশের এই যুগে এখন আপন ঘরে বসেই জমির খতিয়ান বের করতে পারবেন মুহূর্তেই। আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোনের মাধ্যমেই আপনি এখন জমির খতিয়ান পর্চা এবং মৌজা ম্যাপ সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজ করতে পারবেন সহজেই। তাই আমাদের আজকের পোস্টে জমির খতিয়ান বের করার সঠিক দিকনির্দেশনা এবং জমির পর্চা বের করা সম্পর্কে যাবতীয় বিস্তারিত উল্লেখ করা হলো। এছাড়া অনলাইনে জমির মৌজা ম্যাপ দেখার সহজ মাধ্যম দেখানো রয়েছে আমাদের আজকের পোস্টে। তাহলে চলুন শুরু করা যাক আজকের পোস্ট।

জমির খতিয়ান কি

জমির খতিয়ান কি। মূলত জমির মালিকানা স্বত্ব রক্ষা ও রাজস্ব আদায়ের জন্য জরিপ বিভাগ কর্তৃক প্রতিটি মৌজার জমির এক বা একাধিক মালিকের নাম, পিতা বা স্বামীর নাম, ঠিকানা, দাগ নম্বর, ভূমির পরিমাণ, হিস্যা(অংশ), খাজনা ইত্যাদি বিবরণসহ যে ভূমি স্বত্ব প্রস্তুত করা হয় তাকে খতিয়ান বলে। উক্ত রেকর্ডকে স্বত্ত্বের রেকর্ড বা রেকর্ড অব রাইটস(ROR)বলা হয়।

খতিয়ান কত প্রকার ও কি কি:-
বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ৪ ধরনের খতিয়ান রয়েছে। যথাঃ-

  1. সি. এস খতিয়ান
  2. এস. এ খতিয়ান
  3. আর. এস খতিয়ান
  4. বি. এস খতিয়ান / সিটি জরিপ

জমির খতিয়ান হিসাব

জমির খতিয়ান হিসাব। জমির খতিয়ান হিসাব অনেক সহজ একটি ব্যাপার। আমাদের পোস্টের এই অংশে জমির খতিয়ান হিসাব করার সহজ উদাহারণ দেখানো হলো।

মনে করুন, একটি ব্যাংক একাউন্টে  ১,০০,০০০ (এক লক্ষ) টাকা আছে এবং সেই একাউন্টের মালিক একজন। তাহলে সম্পূর্ণ টাকার মালিক ঐ একজন ব্যাক্তি। কিন্তু যদি ব্যাংক একাউন্টের মালিক মোট ৪ জন থাকে এবং সবাই মোট টাকার এক চথুর্তাংশ বা ২৫% এর মালিক হয় তাহলে হিসাব অনুযায়ী প্রতি জন ২৫,০০০ টাকা করে ভাগে পাবেন। এ বিষয়টি টাকার হিসেবে বুঝানো হয়েছে। জমির বেপারেও একই ভাবে হিসাব করা হয়।

ঠিক তেমনি একটি খতিয়ানে জমির হিসাব বলতে বুঝায় ঐ খতিয়ানে যে কয়জন মালিক আছেন তাদের প্রত্যেকে ঐ খতিয়ানে মোট যে পরিমাণ জমি আছে তার কতটুকু জমির মালিক। খতিয়ানের ক্ষেত্রে প্রত্যেকের নামের পাশে তিনি কত ভাগ জমির মালিক তা লেখা থাকবে। দাগ নাম্বার একাধিক থাকলেও মোট জমির পরিমাণের সাথে যার যার মালিকানা অংশ দিয়ে গুন করলেই তার জমির মোট পরিমাণ বের হয়ে যায়।

জমির খতিয়ান দেখার নিয়ম

জমির খতিয়ান দেখার নিয়ম। খতিয়ান বের করার নিয়ম আমরা অনেকেই সার্চ করে থাকি অনলাইনে। বর্তমানে বেশিরভাগ সেবাই এখন অনলাইনে বিদ্যামান। আমরা অনেকেই এই সব সেবা সম্পর্কে অবগত নই। আজকে আমাদের পোস্টে জমির খতিয়ান সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ সব তথ্য দ্বারা আমাদের আজকের পোস্ট সাজানো হয়েছে। আশা করি আমাদের আজকের পোস্টের মাধ্যমে আপনি জমির খতিয়ান সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা লাভ করতে পারবেন। তাই জমির খতিয়ান দেখতে হলে আমাদের পোস্টটি মনোযোগ সহকারে দেখুন।

অনলাইনে পর্চা বের করার নিয়ম

অনলাইনে পর্চা বের করার নিয়ম। জমির রেকর্ড বের করার নিয়ম সম্পর্ক আমাদের আজকের পোস্টে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে। আশা করি আপনাদের কাজে লাগবে। আপনারা যারা অনলাইনে জমির পর্চা বা জমির রেকর্ড দেখতে অথবা প্রিন্ট করতে চাচ্ছেন তারা আমাদের পোস্টের নিচের অংশে সকল দিকনির্দেশনা একদম সহজভাবে পেয়ে যাবেন। আমরা এই বিষয়গুলো উদাহারণ সহকারে একদম সহজভাবে বর্ণনা করতে চেস্টা করেছি। আশা করি আপনাদের বুঝতে সমস্যা হবে না।

অনলাইনে জমির খতিয়ান বের করার নিয়ম

অনলাইনে জমির খতিয়ান বের করার নিয়ম। আপনারা যারা অনলাইনে জমির খতিয়ান বের করতে চাচ্ছেন তাদের জন্য পোস্টের এই অংশে রয়েছে সকল দিকনির্দেশনা এবং লিঙ্ক। কিভাবে আপনার জমির আর এস খতিয়ান বা পর্চা বের করবেন সেটি এখানেই দেয়া হয়েছে। আপনি এখান থেকেই সরাসরি লিঙ্কে প্রবেশ করার মাধ্যমে আপনার জমির খতিয়ান বের করতে পারবেন। তাই দেরি না করে জমির খতিয়ান বের করতে নিম্নের লিঙ্কে প্রবেশ করুন এবং আমাদের পোস্টে দেয়া দিকনির্দেশনা ফলো করুন।

খতিয়ান বের করতে এখানে,  ক্লিক করুন

উপরোক্ত লিঙ্কে প্রবেশ করার পর,

  • ভূমি মন্ত্রণালয়ে প্রবেশ করেই একটু নিচের দিকে স্ক্রল করে ডিজিটাল ভূমিসেবা মেনু এর অধীনে আর এস খতিয়ান এ প্রবেশ করুন।
  • এবার বাংলাদেশের মানচিত্র থেকে আপনার কাঙ্খিত জেলা সিলেক্ট করুন, আপনি চাইলে জেলার নাম লিখে সাবমিট করতে পারেন।
  • এবার আপনার কাঙ্খিত (আর এস) খরিয়ানের টাইপ নির্বাচন করুন।
  • উপজেলা এবং মৌজা নির্বাচন করুন।
  • এবার আপনার সুবিধামত ৪(চার) টি ক্যাটাগড়ি থেকে যে কোন একটি অপশন সিলেক্ট করুন। যথাঃ
    ১. খতিয়ান নং।
    ২. দাগ নং।
    ৩.মালিকানা নাম।
    ৪. পিতা/স্বামীর নাম।
  • অপশন সিলেক্ট করে সেটি সঠিকভাবে পূরণ করুন।
  • সবশেষে ক্যাপচা পূরণ করুন এবং অনুসন্ধান করুন।

এভাবেই আপনার জমির খতিয়ান সহ সকল তথ্য বের করতে পারবেন সহজেই। সকল তথ্য বের হয়ে আসলে আপনি সেটি বের করার জন্য আবেদনে ক্লিক করুন। আপনি চাইলে ২(দুই) ভাবে আপনার খতিয়ান বের করতে পারবেন। যথাঃ

  • অনলাইন কপি এবং
  • সার্টিফাইড কপি।

সারটিফাইড কপির জন্য সেটি সিলেক্ট করুন এবং যাবতীয় সকল তথ্য দিয়ে খালি ঘর পূরণ করুন। আপনি যে অফিস থেকে খতিয়ান নিতে সুবিধা হবে সেই অফিস সিলেক্ট করুন। সব শেষে ফি হিসেবে ৩৫(পয়ত্রিশ) টাকা একপে(EKpay) এর মাধ্যমে প্রদান করুন এবং আবেদন সম্পন্ন করুন।

অনলাইনে মৌজা ম্যাপ দেখার নিয়ম

অনলাইনে মৌজা ম্যাপ দেখার নিয়ম। অনলাইনের এই ডিজিটাল যুগে এখন আপনি ঘরে বসেই নিজের মৌজা ম্যাপ দেখে নিতে পারেন সহজেই। এখন আর পুরনো ম্যাপ কষ্ট করে বয়ে বেড়াতে হবে না। যে কোন সময় যে কোন যায়গার মৌজা ম্যাপ এখন চাইলেই অনলাইনে দেখা সম্ভব।
অনলাইনে মৌজা ম্যাপ দেখতে হলে উপরোক্ত লিংকে প্রবেশ করুন এবং,

  • ডিজিটাল ভুমিসেবা মেনু থেকে মৌজা ম্যাপ সিলেক্ট করুন।
  • এবার একইভাবে আপনি চাইলে ম্যাপ থেক অথবা সরাসরি বিভাগ নির্বাচন করুন।
  • এবার জেলা নির্বাচন করুন।
  • ম্যাপের টাইপ বা ধরণ (আর এস) নির্বাচন করুন।
  • এবার উপজেলা/ সার্কেল নির্বাচন করে আপনার এলাকার মৌজা নির্বাচন করুন।
  • সিট একাধিক থাকলে সেগুলো সিলেক্ট করুন এবং সবশেষে অনুসন্ধান করুন।
  • ফলাফলে আপনার সামনে ম্যাপ চলে আসবে এবং আপনি চাইলে সেটি একই প্রক্রিয়ায় সার্টিফাইড কপির জন্য আবেদন করতে পারেন।

শেষ কথাঃ 
আশা করি আপনাদের প্রয়োজনীয় সকল তথ্য আমাদের পোস্টে পেয়ে গেছেন। আমরা চেস্টা করেছি এ বিষয়ে সকল সঠিক তথ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে আপনাদের সহযোগীতা করার। এ বিষয়ে আপনাদের কোন মতামত অথবা আরো কিছু জানার থাকলে অবশ্যই আমাদেরকে জানাতে ভূলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞ্যাপন করছি সবাইকে।

এছাড়া দেখুনঃ
জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম

ই পাসপোর্ট আবেদন করার নিয়ম

করোনার টিকা পেতে নিবন্ধন করবেন যেভাবে

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম 

Admin

My name is Sumon. I am a small content Writer. I like blogging a lot. I always try to write about new things. And we help everyone there with a variety of information. I hope you like my writing a lot.

Related Articles

Back to top button
Close