পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা গ্রহাণুর গতিপথ পরিবর্তন করবে নাসা

পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা গ্রহাণু কে তার গতি পথ থেকে সরিয়ে দেয়ার প্রযুক্তি পরীক্ষায় মহাকাশে যাত্রা শুরু করেছে ডার্ট নামে নাসার একটি নভোযান। ডাইমরফেস নামে গ্রহাণুর উপর পরীক্ষাটি চালানো হবে।

মহাশূণ্যে ঘুরে বেড়ানো এই গ্রহানুগুলো হচ্ছে যা দিয়ে সৌরজগত সৃষ্টি হয়েছে সে গ্রহ উপগ্রহের রয়ে যাওয়া টুকরো। এরাও সূর্যের চারদিকে ঘুরছে এবং কক্ষপথ কখনো কখনো পৃথিবীর কক্ষপথের মধ্যে ঢূকে পড়তে পারে।  এরা এক বিন্দুতে এসে পড়লে পৃথিবী ও গ্রহানুর মুখামূখী সংঘর্ষ ঘটতে পারে।

বলা হয় ১৬০ মিটার চওড়া কোন গ্রহানু যদি বিষ্ফোরিত হয় সেটি হবে একটি পারমাণবিক বোমার চাইতেও বেশি প্রচন্ড।

মহাশূণ্যে নাসার নতুন মিশন এবার পৃথিবীকে রক্ষার পরিক্ষা। ৭৮০ মিটার চওড়া ডিঢামাইস আর ১৬০ মিটার চওড়া ডাইমোড় ফেইস নামে একজোড়া গ্রহানু যার বড়টিকে কেন্দ্র করে ঘুরছে ছোটটি। তাদের উপর পরিক্ষা নিরীক্ষায় ডার্ট নামে নতুন নভোযান রওনা হয়েছে মহাশূণ্যে।

ক্যালিফোর্নিয়ার ভ্যান্ডেনবার্গ স্পেস ফোর্স ঘাটি থেকে উৎক্ষেপণ করা হয় ডার্ট। এটি পৃথিবীর মধ্যাকর্ষন কাটিয়ে মহাশূণ্যে যাবে এবং সূর্যের চারদিকে তার নিজ কক্ষপথে ঘুরতে শুরু করবে। এ বছরের সেপ্টেম্বরে এই জোড়া গ্রহানু যখন পৃথিবীর ৬৮ লাখ মেইল এর মধ্যে আসবে তখন তাদের একটির সংগে সংঘর্ষ ঘটবে ডার্টের।

ড্রাকো নামে একটি ক্যামেরা বসানো ডার্টের গায়ে যা নির্ভূলভাবে ডাইমোরফেস এর উপর আঘাত হানতে সহায়তা করবে। ঘন্টায় ১৫ হাজার মেইল বেগে ডাইমোরফেসে আঘাত হানবে ডার্ট। এতে গ্রহানুর গতি সামান্য হলেও কমবে। বিজ্ঞানীরা বলছেন পৃথিবীর সংগে ধাক্কা লাগা এড়াতে গতিপথের এতটুকু পরিবর্তনি যথেষ্ট।

24 Update

My name is Sumon. I am a small content Writer. I like blogging a lot. I always try to write about new things. And we help everyone there with a variety of information. I hope you like my writing a lot.
Back to top button
Close